কিডনি ভালো রাখার উপায় কি - কিডনি ভালো রাখার দোয়া

আজকাল ঘরে ঘরে মানুষের যে সমস্যা তৈরি হচ্ছে তা হলো কিডনির সমস্যা। এই সমস্যা দিন দিন ব্যাপক হারে বেড়েই চলেছে। একজন মানুষের সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য প্রয়োজন একটি সুস্থ এবং স্বাভাবিক কিডনির। কিন্তু আমাদের কিছু অবহেলা কারণে এই কিডনি নষ্ট হচ্ছে। অথচ আমাদের শরীরে পরিষ্কার রক্ত প্রবাহের পেছনে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এই কিডনি। কিডনি আমাদের শরীরের ইলেকট্রোলাইট এবং ফ্লুইডের ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। তাই আমরা যাই করি না কেন আমাদেরকে কিডনি ভালো রাখতেই হবে।

প্রিয় পাঠকবৃন্দ আজকের আর্টিকেলটি সাজানো হয়েছে কিডনি ভালো রাখার উপায় কি এবং কিডনি ভালো রাখার দোয়া সম্পর্কে। তাই আপনি যদি আপনার কিডনি ভালো রাখতে চান তাহলে অবশ্যই আজকের আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ার অনুরোধ রইলো। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক কিডনি ভালো রাখার উপায় কি?


পেজ সূচিপএঃ কিডনি ভালো রাখার উপায় কি | কিডনি ভালো রাখার দোয়া

পর্যাপ্ত বিশুদ্ধ পানি পান

কিডনি সুস্থ রাখার জন্য পর্যাপ্ত বিশুদ্ধ পানি পানের কোন বিকল্প নেই। তাই প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে বিশুদ্ধ পানি পান করতে হবে। পানি কিডনিকে সচল রাখতে এবং এর স্বাভাবিক কাজকর্ম বজায় রাখতে সাহায্য করে। একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করলে কিডনি ভালো থাকবে। তাই আমাদের উচিত কিডনি সুস্থ এবং স্বাভাবিক রাখার জন্য প্রতিদিন পর্যাপ্ত পানি পান করা।

ধূমপান

আমাদের মধ্যে অনেক মানুষ আছে যারা বদ্ধঘরের মধ্যে পরিবারের কাছ থেকে শুরু করে পাবলিক প্লেস যেখানে সেখানে অনায়াসেই ধূমপান করে। কিন্তু এই ধূমপান একটি মারাত্মক ভয়াবহ বদ অভ্যাস। যা শরীরে বিভিন্ন জটিল রোগের সৃষ্টি করে। এটি মূলত সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করে ফুসফুসের। পাশাপাশি এটি কিডনিরও ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে থাকে। তাই কিডনিকে সুস্থ এবং এর সকল কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখার জন্য আমাদের সকলের উচিত ধুমপান করা থেকে বিরত থাকা।

ব্যাথার ঔষধ

আমাদের মধ্যে কিছু কিছু মানুষ আছে যাদের সামান্য একটু ব্যাথা হলেই তারা ব্যথার ওষুধ খায়। কিন্তু আপনি কি জানেন আমাদের কিডনির যে কোষগুলো রয়েছে তার মারাক্মক ক্ষতি সাধন করে এই ব্যাথার ঔষধ। তাই কিডনি সুস্থ এবং স্বাভাবিক রাখার জন্য যখন তখন ব্যথার ঔষধ খাওয়া ছেড়ে দিন। যদি ব্যথা একান্ত সহ্য করতে নাই পারেন তাহলে তখনই ব্যথার ঔষধ খান তাছাড়া ব্যথার ঔষধ খাওয়ার দরকার নেই।

লবণ

আপনার যদি খাওয়ার পাতে অতিরিক্ত লবণ খাওয়ার অভ্যাস থাকে, তাহলে আজকেই এই অভ্যাসের ইতি টেনে ফেলুন। কিডনি শরীর থেকে অতিরিক্ত সোডিয়াম নিষ্কাশন করতে পারে না তাই এর বাড়তি অংশটুকু কিডনিতেই থেকে যায় যা কিডনির মারাত্মক ক্ষতি সাধন করে। এজন্য আমাদের অতিরিক্ত লবণ খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।

প্রসাব আটকে রাখা

আমরা যখন অনেক সময় বাইরে বের হই তখন প্রকৃতির ডাক চলে আসে। কিন্তু আমরা এই বিষয়টা হালকা ভাবে নিয়ে প্রসাব আটকে রাখি। কিন্তু আপনি জানলে অবাক হবেন যে, প্রসাব আটকে রাখার কারণে কিডনিতে চাপ পড়ে, যা কিডনিকে নষ্ট করে দেয়ার জন্য যথেষ্ট।


আপনি যদি উপরে উল্লেখিত পাঁচটি বিষয় সঠিকভাবে মেনে চলতে পারেন তাহলে আপনি আপনার কিডনিকে সুস্থ এবং স্বাভাবিক রাখতে পারবেন।

কিডনি ভালো রাখার দোয়া

 “ছুম্মা ক্বাসাত কুলুবুকুম মিম বাদি জালিকা ফাহিয়া কালহিঝরাতি আাও আসাদ্দু ক্বাসওয়াহ; ওয়া ইন্না মিনাল হিঝরাতি লিমা ইয়াতাফাঝঝারু মিনহুল আনহার; ওয়া ইন্না মিনহা লামা ইয়াশাক্কাকু ফাইয়াখরুঝু মিনহুল মা; ওয়া ইন্না মিনহা লামা ইয়াহবিতু মিন খাশইয়াতিল্লাহ; ওয়া মাল্লাহু বিগাফিলিন আম্মা তামালুন।” (সূরা বাকারাঃ আয়াত ৭৪)

(বাংলা উচ্চারণ সম্পূর্ণ সঠিক নয়। কোরআন পড়তে পারে এমন ব্যক্তির থেকে আয়াতটি ভালোভাবে শিখে নিন)

যদি কোন ব্যক্তির কিডনিতে পাথর হয় তাহলে সূরা বাকারার ৭৪ নং আয়াতটি প্রতিদিন ৪১ বার পাঠ করলে ইনশাআল্লাহ আল্লাহর রহমতে ভালো হয়ে যাবে।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url