টেস্টোস্টেরন হরমোনের এর কাজ কি - টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির উপায় কি

মানবদেহে বিভিন্ন ধরনের হরমোন নিশ্রিত হয় যা এক একটি কাজের সাথে জড়িত। মানবদেহে টেস্টোস্টেরন নামক এক ধরনের হরমোন আছে যা শরীরের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি হরমোন। আপনার যদি টেস্টোস্টেরন হরমোন সম্পর্কে জানার আগ্রহ থাকে তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক টেস্টোস্টেরন হরমোনের  এর কাজ কি এবং টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির উপায় কি এবং টেস্টোস্টেরন হরমোন কেন কমে যায়।


পেজ সূচিপএঃ টেস্টোস্টেরন হরমোনের  এর কাজ কি - টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির উপায় কি

টেস্টোস্টেরন হরমোনের  এর কাজ কি

টেস্টোস্টেরন হরমোন পুরুষদের যৌন বৃদ্ধি, লিঙ্গজনিত গুনগত বৈশিষ্ট্য এবং সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি মূলত পুরুষদের জন্য নির্দিষ্ট হরমোন হিসেবে পরিচিত।

টেস্টোস্টেরন হরমোনের কাজগুলো নিম্নরূপঃ

1. যৌন বৃদ্ধিঃ টেস্টোস্টেরন পুরুষের যৌন বৃদ্ধিকে সহায়তা করে। এটি যৌন প্রজনন অঙ্গটির উন্নতি এবং বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় উপাদানগুলির উত্পাদন করে।

2. লিঙ্গজনিত গুনগত বৈশিষ্ট্যঃ টেস্টোস্টেরন হরমোন মানুষের লিঙ্গজনিত বৈশিষ্ট্যের উন্নতি এবং সংরক্ষণ করে। এটি স্বাভাবিক বৃদ্ধি, মাংসপেশীর বৃদ্ধি, স্নায়ুতন্ত্রের উন্নতি, ওজনের বৃদ্ধি এবং দৃষ্টিপাতের উন্নতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

3. হাড় এবং মাংসপেশীঃ টেস্টোস্টেরন হরমোন হাড় এবং মাংসপেশীর গঠন এবং বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীগুলির উত্পাদন করে। এটি পুরুষের শরীরে মাংসপেশীর বৃদ্ধি ও বয়স্ক হওয়ার সাথে সাথে হাড় সঠিকভাবে প্রস্তুত হয়।

4. মনস্তাত্ত্বিক ও মনোভাবঃ টেস্টোস্টেরন হরমোন মানুষের মনস্তাত্ত্বিক ও মনোভাব নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। এটি মনোভাবের স্থিতি, স্বপ্নদৃষ্টি, স্বপ্নময়তা, আদর্শপরায়ণতা ইত্যাদির জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

এছাড়াও, টেস্টোস্টেরন হরমোন সামগ্রিক স্বাস্থ্যের উন্নতি ও শরীরের কল্যাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি হাড়, চোখ, চুল, ত্বক ইত্যাদির স্বাস্থ্যকর মানকে উন্নত করে।

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির উপায় কি

টেস্টোস্টেরন হরমোনের স্তর বৃদ্ধির জন্য কিছু প্রয়োজনীয় উপায় আছে। নিম্নলিখিত উপায়গুলি টেস্টোস্টেরন হরমোনের বৃদ্ধিতে সাধারণত ব্যবহৃত হয়ঃ

1. স্বাস্থ্যকর খাদ্যঃ স্বাস্থ্যকর খাদ্য পর্যাপ্ত পুরুষ হরমোনের উত্পাদনে সহায়তা করে। আপনার খাদ্যে প্রোটিন, ক্যার্বোহাইড্রেট, মিনারেল এবং ভিটামিনের উচ্চ পরিমাণ থাকা উচিত। প্রোটিন ধারণ করার জন্য মাংস, মাছ, ডেয়ারি পণ্য, ডাল, অ্যালমন্ড, পীনাটস এবং মেড প্রোডাক্টস উপযুক্ত।

2. ব্যায়াম এবং উপায়ঃ নিয়মিত ব্যায়াম ও উপায় টেস্টোস্টেরন হরমোনের বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। ব্যায়ামের মাধ্যমে ওজন ত্বক, মাংসপেশীর উন্নতি হয় এবং টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি পায়। নিয়মিত সংগঠিত ব্যায়াম যেমন ওয়েট লিফ্টিং, অ্যারোবিক কার্ডিও, বাড়ীয় ওয়ার্কআউট, যোগাযোগযোগ্য উপায় চালানো উচিত।

3. শক্তির মাপন ও প্রশিক্ষণঃ টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি পেতে শক্তির মাপন ও প্রশিক্ষণ সাহায্য করতে পারে। উচ্চ শক্তিশালী ব্যায়াম, যেমনঃ ওয়েট লিফ্টিং, স্কোয়াট, ডেডলিফ্ট ইত্যাদি শক্তিশালী মানুষদের টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে পারে।

4. নিয়মিত পর্যবেক্ষণ ও নিয়ন্ত্রণঃ নিয়মিত পর্যবেক্ষণ এবং নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে টেস্টোস্টেরন স্তর নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। অপ্রাকৃত টেস্টোস্টেরন স্তর আপনার স্বাভাবিক স্তরে ফিরে আনার জন্য ডাক্তারের নির্দেশ অনুযায়ী থাকা উচিত।

এছাড়াও, মনোয়ন্ত্রণক্ষমতা বাড়ানোর জন্য স্বপ্নযোগ্য পরিবেশ নিশ্চিত করা, স্ট্রেস ম্যানেজমেন্ট নিয়মিত পর্যবেক্ষণ ও পরামর্শ এবং স্বাস্থ্যকর জীবনযাপনের উপকরণগুলি টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে সাহায্য করতে পারে।

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির খাবার তালিকা

টেস্টোস্টেরন হরমোনের স্তর বৃদ্ধি করার জন্য নিচে কিছু খাবার উল্লেখ করা হলোঃ

1. মাংসঃ পুরুষদের টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করার জন্য মাংস খাওয়া উচিত। প্রাথমিকভাবে মাংসে প্রোটিন ও জিংক পাওয়া যায়, যা টেস্টোস্টেরন উত্পাদন সমর্থন করে। 

2. মাছঃ মাছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি ও ভিটামিন ডি পাওয়া যায়, যা টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। বিশেষত মাছের মধ্যে সামুদ্রিক মাছগুলি যেমনঃ সার্মন, টুনা, সার্ডাইন, ম্যাকরেল, সার্কেল ইত্যাদি মাছ খাওয় উচিত।

3. ডালঃ ডাল টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে সহায়তা করতে পারে। মুগ ডাল, চানা ডাল, চিকপেস, অরহর ডাল এবং চারা ডাল টেস্টোস্টেরন বৃদ্ধির জন্য প্রাথমিক উল্লেখ যোগ্য।

4. ওস্ট্রিচঃ ওস্ট্রিচের মাংস অন্যান্য মাংসের তুলনায় টেস্টোস্টেরন  হরমোন স্তর বৃদ্ধি করার জন্যে ভাল হয়ে থাকে। ওস্ট্রিচে পুরুষদের টেস্টোস্টেরন বৃদ্ধি করতে ক্রিয়েটিন ও নিট্রিক অক্সাইড পাওয়া যায়, যা টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।
5. মাখনঃ স্বাস্থ্যকর মাখন টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে সহায়তা করতে পারে। ঘাসের গোশ্তে পাওয়া গাইরগরু মাখন, জন্তু মাখন এবং সহজে পাওয়া যাওয়া মাখনগুলি টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধির জন্য ভাল হয়ে থাকে।

এছাড়াও, আপনার খাদ্যে স্বাস্থ্যকর ফল, সবজি, দারুচিনি, লবঙ্গ, অক্সফোর্ডের কাচা বাদাম, অনানাস, পমগ্রানেট, অ্যাভোকাডো, কফি, শীতলযুক্ত পানীয় এবং হাই-ইন্টেনসিটি ব্যায়াম যুক্ত করা উচিত।

মনে রাখবেন, এই খাদ্য উল্লেখ করা হল একটি সাধারণ নির্দেশাবলী। স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যের সাথে ব্যায়াম, পর্যবেক্ষণ এবং নিয়মিত পরামর্শ একত্রে রাখা উচিত। নিজের স্বাস্থ্য সম্পর্কে জানা এবং ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া সবসময় গুরুত্বপূর্ণ।

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ব্যায়াম

নিয়মিত ব্যায়াম টেস্টোস্টেরন হরমোনের স্তর বৃদ্ধি করতে সহায়তা করতে পারে। নিচে কিছু ব্যায়ামের উদাহরণ দেয়া হলোঃ

1. ওয়েট লিফটিংঃ ওয়েট লিফটিং টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে পারে। এই প্রক্রিয়ায় হাতে ওজন ধারণ করে কম্পিউটারিয়াইজড যৌক্তিক উপায়ে মাথা ও স্কোয়াট উঠানো হয়। ক্রিয়াটিন ফস্ফেট বিতরণ বৃদ্ধি করতে পারে এবং টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে সাহায্য করতে পারে।

2. হাই ইন্টেন্সিটি ইন্টারভাল ট্রেনিংঃ হাই ইন্টেন্সিটি ইন্টারভাল ট্রেনিং (HIIT) করা টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে সাহায্য করতে পারে। HIIT ব্যায়াম করার সময় কার্ডিও উপায়ে উচ্চ শক্তির সংক্রান্ত ব্যায়ামের মাধ্যমে অধিক হারে টেস্টোস্টেরন স্তর উন্নত করা যায়।

3.বাড়ীয় ওয়ার্কআউটঃ বাড়ীয় ওয়ার্কআউট টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে সাহায্য করতে পারে। এই ব্যায়ামে আপনি আপনার শরীরের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক মাংসপেশীগুলি সম্পর্কিত উপায়ে কাজ করতে পারেন।
4.কার্ডিও ব্যায়ামঃ কার্ডিও ব্যায়াম টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে সাহায্য করতে পারে। সাধারণত প্রাত্যহিক কার্ডিও ব্যায়াম করা উচিত, যেমনঃ সাইকেল চালানো, জগলিং বা সার্কিউট ট্রেনিং ইত্যাদি।

5.যোগাযোগযোগ্য ব্যায়ামঃ যোগাযোগযোগ্য ব্যায়াম টেস্টোস্টেরন স্তর বৃদ্ধি করতে পারে। যোগাযোগযোগ্য ব্যায়ামের উদাহরণ হতে পারে যোগাযোগযোগ্য খেলা যেমনঃ ফুটবল, বাস্কেটবল, টেনিস ইত্যাদি।

আপনাকে অবশ্যই আপনার শরীরের স্বাস্থ্য এবং যৌন অবস্থার উপর ব্যায়ামের প্রভাব পর্যবেক্ষণ করতে হবে এবং নিজের সুস্থ্যসম্মত ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। প্রতিদিনের নিয়মিত ব্যায়ামের সাথে স্বাস্থ্যকর খাদ্য, পর্যবেক্ষণ এবং নিয়মিত পরামর্শ করতে হবে।

টেস্টোস্টেরন হরমোন কেন কমে যায়

টেস্টোস্টেরন হরমন কমে যাওয়ার কারণগুলি অনেকগুলি হতে পারে। কিছু প্রধান কারণগুলি নিম্নে উল্লেখ করা হলোঃ

1.বয়সঃ পুরুষের সাথে বয়স বাড়লে টেস্টোস্টেরন স্তর নামাতে পারে। এটি প্রাকৃতিক প্রক্রিয়া যা পুরুষের জীবনের একটি অংশ। যদিও সাধারণত টেস্টোস্টেরন স্তর কমানো হয় পরিবার পরিকল্পনায় প্রবৃদ্ধি হওয়ার পরে থেকেই শুরু হয়, কিন্তু বয়সের সাথে এর কম হওয়া সাধারণত আরও ক্রমাগত হয়।

2. নিম্ন শরীরের ওজনঃ মানসিক চাপ এবং অন্যান্য সমস্যার কারণে শরীরের ওজন কমে যায়, যা টেস্টোস্টেরন স্তর কমানোর কারণ হতে পারে। ওজনের ক্ষেত্রে, পর্যবেক্ষণ এবং পরামর্শ পাওয়া উচিত যাতে উচ্চ ওজন লাভ করতে পারেন।
3. অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপনঃ অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন, ক্রমশঃ অপ্রত্যাশিত শ্রম, খাদ্য ভোজনে অপর্যাপ্ত পুরুষসহ স্তন্যপান, স্বাস্থ্যকর খাদ্য না খাওয়া, পর্নোগ্রাফি, মাদকাসক্তি এবং অন্যান্য অস্বাস্থ্যকর আদতের কারণে টেস্টোস্টেরন স্তর কমাতে পারে।

4. স্ট্রেসঃ দৈনন্দিন জীবনের উচ্চ স্তরের স্ট্রেস ও মানসিক চাপ টেস্টোস্টেরন স্তর কমাতে পারে। স্ট্রেস নিয়ন্ত্রণের জন্য মেডিটেশন, মনোয়াত্তকতা প্রশিক্ষণ, সময় পরিচালনা এবং অবসরপ্রাপ্তির জন্য পর্যবেক্ষণ ও সার্বিক যোগাযোগ প্রয়োগ করা উচিত।

5. মেডিক্যাল শর্তঃ কিছু মেডিক্যাল শর্ত, যেমন হিপোগনাডিসম, টেস্টিকুলার ক্যান্সার, অস্থি ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, থাইরয়েড অস্তিত্ব, ক্রোমোসোমাল অস্তিত্ব, লিভার বা কিডনির সমস্যা ইত্যাদি, টেস্টোস্টেরন স্তর কমিয়ে আনতে পারে।

সকল কারণের জন্য টেস্টোস্টেরন স্তর কমানোর সময় প্রতিক্রিয়া ভিন্ন হতে পারে এবং এটি ব্যক্তিগত হতে পারে। যদিও কিছু কারণ পরিবর্তন করলে টেস্টোস্টেরন স্তর উন্নত হতে পারে, তবুও সকল প্রতিক্রিয়া ডাক্তারের পরামর্শের ভিত্তিতে হওয়া উচিত।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url